আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ২৬ নভেম্বর থেকে দিল্লি সীমান্তে অবস্থান বিক্ষোভ করছেন কৃষকরা। বেশিরভাগই পাঞ্জাব এবং হরিয়ানার। ঠান্ডা উপেক্ষা করে খোলা আকাশের নীচে গত ৩১ দিন ধরে থাকছেন তাঁরা। ইতিমধ্যে ঠান্ডায় মারা গেছেন অন্তত ৩০ জন কৃষক। সারা দেশের বহু মানুষ এক এক করে তাঁদের পাশে এসে দাঁড়াচ্ছেন। এবার এদেশেরই আর এক রাজ্যের কৃষকরা তাঁদের জন্য পাঠালেন ট্রাক বোঝাই আনারস।
কেরলের ভাঝাকুলাম শহর আনারস উৎপাদনের জন্য বিখ্যাত। এশিয়ায় সবথেকে বেশি আনারস উৎপাদন হয় এখানেই। একে ‘‌আনারসের শহর’‌–ও বলা হয়। শহরে আবার আনারস নিয়ে গবেষণা কেন্দ্রও রয়েছে। মরসুমে এখান থেকে সারা দেশের বাজারি বিক্রির জন্য ১৪ হাজার টন আনারস পাঠানো হয়। 
এবার সেই শহরের কৃষকরাই ২০ টন আনারস পাঠালেন দিল্লিতে। বৃহস্পতিবার সেই ট্রাক রওনা দিল দিল্লির উদ্দেশে। যাত্রা সূচনা করলেন কেরলের কৃষি মন্ত্রী ভিএস সুনীল কুমার। সেই সঙ্গেই এখানকার কৃষকরা আন্দোলনকারীদের দিকে বাড়িয়ে দিলেন সমর্থনের হাত। 
লকডাউনের জের এ শহরের কৃষকদের ওপরেও পড়েছে। মন্দা চলছে ব্যবসায়ে। সেজন্য শহরের এক আনারস কৃষক আত্মহত্যাও করেছেন। ঋণ নিয়ে চাষ করেছিলেন। লকডাউনের জন্য বিক্রি হয়নি। লাভ ওঠেনি। এবার নতুন কৃষি আইনে আরও ক্ষতির সম্মুখীন হতে পারেন কৃষকরা বলেই আন্দোলনে সমর্থন জানালেন। 

জনপ্রিয়
আজকাল ব্লগ

Back To Top