আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ মৃতদেহ সৎকার করতে গিয়ে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হতে পারেন তাঁরা। এই আতঙ্কে হাতির পায়ে পিষ্ট হয়ে মৃত এক মানসিক ভারসাম্যহীন ব্যক্তির মৃতদেহ নিতে অস্বীকার করেন তাঁর পরিবারের লোকজন। নাচার হয়ে ৪৪ বছরের ওই ব্যক্তির শেষকৃত্য সম্পন্ন করলেন তিনজন পুলিশকর্মী। অস্বাভাবিক এই ঘটনাটি ঘটেছে কর্নাটকের চামরাজানগর জেলা এবং মাইসুরু জেলার সীমানায়। জঙ্গলাকীর্ণ ওই এলাকায় বরাবরই হাতি বা অন্যান্য পশুপ্রাণীর আনাগোণা লেগে থাকে। গত চারদিন আগে হাতির পায়ে পিষ্ট হয়ে মৃত্যু হয়েছিল ওই ব্যক্তির। দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের পর পুলিশ তা পরিবারের হাতে তুলে গেলে দেহ নিতে অস্বীকার করে পরিবার। অবশেষে মৃত ব্যক্তির মর্যাদাপূর্ণ শেষ বিদায়ের লক্ষ্যে চামরাজানগর পূর্ব থানার এএসআই মাদেগৌড়া এবং দুজন পুলিশ অফিসার মিলে চামরাজানগরের শ্মশানে কবর খুঁড়ে তাঁর শেষকৃত্য সম্পন্ন করেন। শেষকৃত্যের অনুষ্ঠানে কোনও পুরোহিত উপস্থিত না থাকলেও মাটি চাপা দেওয়ার পর মাদেগৌড়া নিজেই প্রার্থনা সারেন মৃতের স্মৃতিতে। তাঁর থানার তিন পুলিশকর্মীর এই উদ্যোগের জন্য তাঁদের অভিনন্দন জানিয়েছেন চামরাজানগর পূর্ব থানার অফিসার–ইন–চার্জ সুনীল।

জনপ্রিয়
আজকাল ব্লগ

Back To Top