আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ১৫ বছর বয়সেই মেয়েরা সন্তান প্রসবে সক্ষম। তাহলে আর তাদের বিয়ের বয়স বাড়ানোর প্রয়োজন কেন?‌ একটি বিতর্কসভায় এই মন্তব্যি করলেন মধ্যপ্রদেশের প্রাক্তন কংগ্রেস মন্ত্রী। তার পরেই বিতর্ক। সজ্জন সিং বর্মা নামে ওই কংগ্রেস নেতাকে দল থেকে অপসারণের দাবি তুলল বিজেপি। 
রাজ্যে কংগ্রেসের মুখপাত্র ভূপেন্দ্র গুপ্তা যদিও জানালেন, বিজেপি অকারণে রাজনীতি করছে। ইচ্ছা করে ইস্যু তৈরি করছে। 
সম্প্রতি মহিলাদের বিরুদ্ধে হিংসা রোধ করতে একটি প্রচার অভিযান শুরু করেছে মধ্যপ্রদেশ সরকার। ‘‌সম্মান’‌ নামে ওই অভিযান চলবে ১৫ দিন ধরে। উদ্বোধনের দিন একটি বিতর্কসভার আয়োজন করা হয়। মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং দাবি করেন, মেয়েদের বিয়ের বয়স ১৮ থেকে বাড়িয়ে ২১ করা উচিত। 
পাল্টা জবাব দিতে গিয়ে সজ্জন সিং বর্মা বলেন, ‘‌এটা আমার আবিষ্কার নয়। চিকিৎসকরাই বলেন, ১৫ বছর বয়সে মেয়েরা সন্তান জন্ম দিতে সক্ষম। এ থেকে স্পষ্ট, যে ১৮ বছর বয়সে বিয়ের জন্য মেয়েরা যথেষ্ট পরিণত হয়ে যায়।’‌ এখানেই থামেননি মধ্যপ্রদেশের প্রাক্তন পিডব্লুডি মন্ত্রী। বললেন, ‘‌১৮ বছর হলেই মেয়েদের শ্বশুরবাড়ি গিয়ে সুখে সংসার করা উচিত।’‌
বর্মা শিবরাজ সিংকে খোঁচা দিয়ে বলেন, ‘‌উনি কি বিজ্ঞানী, না চিকিৎসক, যে মেয়েদের বিয়ের বয়স বাড়ানো নিয়ে সওয়াল করছেন।’‌ তার পরেই সরব বিজেপি। মুখপাত্র রাহুল কোঠারি বললেন, সজ্জন সিং শুধু রাজ্য নয়, গোটা দেশের মেয়েদের অপমান করেছেন। নিজের দলের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদকও যে মহিলা, ভুলে গেছেন। 

জনপ্রিয়
আজকাল ব্লগ

Back To Top