পাহাড়, জঙ্গল ঘুরে গোটা গ্রামকে টিকা দেওয়ালেন বাংলার এই জেলাশাসক

আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ দুর্গম পাহাড়। ঘন জঙ্গল। এসবেই ঘেরা ছোট্ট এক গ্রাম। পৌঁছনোই দায় প্রশাসনের কাছে। এমনকী স্বাস্থ্যকর্মীরাও দুর্গম এই গ্রামে পৌঁছতে বিপাকে পড়েন। সেখানে কোভিড টিকা বিষয়ে বেশিরভাগ মানুষের কোনও ধারণাই নেই। ওই গ্রামেই টিকা নিয়ে পৌঁছে গেলেন জেলাশাসক। গ্রামের প্রত্যেক মানুষকে বোঝালেন, কেন দরকার টিকাকরণ। তার পর একদিনে সকলকে টিকাও দেওয়ালেন।
তিনি আলিপুরদুয়ারের জেলাশাসক সুরেন্দ্র কুমার মিনা। গোটা দিন পাহাড় চড়ে, জঙ্গল পেরিয়ে পৌঁছে গেলেন প্রত্যন্দ গ্রাম আদমায়। ভুটান সীমান্তে রয়েছে এই গ্রাম। সেখানে বাসিন্দাদের ঘরে ঘরে ঘুরলেন। সঙ্গে ছিল বিডিও এবং স্বাস্থ্যকর্মী। সকলে মিলে বোঝালেন গ্রামবাসীদের।
কাজটা খুব সহজ ছিল না। কারণ আদমায় টিকা নিয়ে কীভাবে যাওয়া যাবে, সেই নিয়েই চিন্তায় ছিলেন স্বাস্থ্যকর্মীরা। কারণ তার দুর্গমতা। পোখারি থেকেও প্রায় ২০ কিলোমিটার দূরে রয়েছে আদমা। মসিহা হয়ে এগিয়ে আসেন মিনা। ডিপিএলও, বিডিওদের সঙ্গে নিয়ে তিনিই শুরু করেন ট্রেকিং। সঙ্গে টিকা। জেলাশাসকের আর্জি শুনে আর বসে থাকেননি গ্রামবাসীরা। তাঁরাও এগিয়ে আসেন। একে একে সকলে নেন কোভিড টিকা। 
তবে এই প্রথম নয়। কোভিডের দ্বিতীয় ঢেউ ধাক্কা দিয়েছে রাজ্যে। এর মধ্যে গত এপ্রিলে ডুয়ার্সকন্যায় বৈঠকের মাঝে হাসপাতাল সুপারের কাছে রক্তসঙ্কটের কথা শুনেছিলেন জেলাশাসক সুরেন্দ্র কুমার মিনা। আর তা শুনে বৈঠক শেষ হতেই নিজে হাসপাতালে ছুটেছিলেন রক্তদান করতে। জেলার বাসিন্দারা এখনও ভোলেননি সেকথা। তাঁরা মেনে নিলেন, মিনা শুধু শাসক নন, তাঁদের বন্ধুও।