আজকালের প্রতিবেদন, দিল্লি, ২৯ মে- করোনা ভাইরাসের আক্রান্তের ‌সংখ্যায় ফের রেকর্ড! গত‌ ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হলেন ৭,৪৬৬ জন। সংখ্যাটা এখনও পর্যন্ত দৈনিক করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধির ক্ষেত্রে সর্বাধিক। করোনা সংক্রমিত দেশগুলির তালিকায় ন’‌ নম্বরে উঠে এসেছে ভারত। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের তথ্য বলছে, এখনও পর্যন্ত দেশে ১ লক্ষ ৬৫ হাজার ৭৯৯ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। মৃত্যু হয়েছে ৪,৭০৬ জনের। মৃত্যুর সংখ্যায় চীনকেও ছাপিয়ে গেছে ভারত। লাফিয়ে সংক্রমণ বাড়তে থাকায় উদ্বেগ বাড়ছে সরকারের।‌ মহারাষ্ট্র, তামিলনাড়ু, দিল্লি ও গুজরাটে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা সর্বাধিক। করোনা প্রকোপ যেভাবে বাড়ছে, তাতে আরও এক দফা লকডাউনের মেয়াদ বৃদ্ধিরই ইঙ্গিত মিলেছে। 
রাজধানী দিল্লিতে করোনার রেকর্ড বৃদ্ধি হয়েছে শুক্রবার। এদিনই সামনে এসেছে রাজ্যসভার সচিবালয়ের এক আধিকারিকের করোনা পজিটিভের খবর। সিল করে দেওয়া হয়েছে সংসদ ভবনের অ্যানেক্স বিল্ডিয়ের দুটি তলা। এদিকে, গত দু’‌দিনে দিল্লি এইমসের ৫০–‌এর বেশি চিকিৎসক, নার্স, স্বাস্থ্যকর্মী করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। দিল্লিতে গত ২৪ ঘণ্টায় ১,১০৬ জনের করোনা পজিটিভ ধরা পড়েছে। গতকালও ১,০২৪ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন। পরপর দু’‌দিনে হাজারের বেশি আক্রান্ত হওয়ার পর রাজ্য সরকার জানিয়েছে, রাজধানীতে আক্রান্তদের প্রায় ৫০ শতাংশ সুস্থ হয়েছেন। এছাড়াও হোম আইসোলেশনে ৮০–‌‌৯০ শতাংশ মানুষ সুস্থ হয়ে উঠছেন। এরমধ্যে দিল্লির উপ–‌‌মুখ্যমন্ত্রী মণীশ শিশোদিয়া দাবি করেছেন, করোনা নিয়ে ভয়ের কিছু নেই। হালকা জ্বর বা করোনার সামান্য উপসর্গ দেখা দিলে উদ্বিগ্ন হওয়ার কারণ নেই। সামান্য উপসর্গ দেখা দিলেই হাসপাতালে আসার প্রয়োজনও নেই। স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঘরে থেকেই করোনা থেকে সুস্থ হওয়া যায়। দিল্লির স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানান, দিল্লিতে সব মিলিয়ে ১৭,৩৮৬ জন আক্রান্ত হলেও ৭,৮৪৬ জন সুস্থ হয়েছে। ৩৯৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। 
এদিকে, মহারাষ্ট্রে প্রায় ৬০ হাজার করোনা আক্রান্ত। ২,২১৫ জন পুলিশ কর্মী করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ২৫ জন পুলিশ কর্মীর করোনা পজিটিভ ধরা পড়েছে। তামিলনাড়ুতে ১৯,৩৭২ জন আক্রান্ত। গুজরাটেও করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১৫ হাজার ছাড়িয়েছে। অসমে নতুন করে ৩০ জন আক্রান্ত হয়েছেন। অসমে সব মিলিয়ে ৯১০ জন করোনা আক্রান্ত।‌

জনপ্রিয়

Back To Top